কে ছিল গোকতুগ আল্প বিস্তারিত জেনে নিন-গোকতুগ আল্পের জীবনী- অনুবাদ মিডিয়া

কুরুলুস ওসমান সিরিজ যা তুর্কি ভাষায় প্রতি বুধবার ২০:০০ টায় তুরষ্কের এটিভি চ্যানেল প্রতিটি পর্ব ধারাবাহিক ভাবে সম্প্রচার করে আসছে, কুরুলুস ওসমান সিরিজে দেখানো হয়েছে কিভাবে ওসমান গাজীর নেতৃত্বে অটোমান সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

যেটি প্রায় ছয় শতাব্দী ধরে পুরো বিশ্বকে শাসন করেছিল, এতোমধ্যে কুরুলুস ওসমান সিরিজটি দর্শকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। এই সিরিজের একটি গুরুত্বপুর্ণ চরিত্রের নাম গোকতুগ বা কোঙ্গার, যিনি কনুর আল্পের ভাই।

সম্প্রতি সে কুরুলুস ওসমান সিরিজ থেকে বিদায় নেয়ায় মানুষ এখন তার ঐতিহাসিক ইতিহাস খুজতে শুরু করে।তাই আমরা তার সম্পর্কে কিছু তথ্য খুজার চেষ্টা করেছি।

গুকতোগ এর আসল নাম হলো বুরাক চেলিক যিনি কুরুলুস ওসমান সিরিজে ২টি চরিত্রে অভিনয় করেছেন। প্রথম চরিত্র হলো কোঙ্গার এবং দ্বিতীয় চরিত্র হলো গোকতুগ।

আমরা জানি যে অটোমান সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার সময় মঙ্গোলরা তখন বিশ্ব শাসন করছিল। তখন তাদের একমাত্র লক্ষ্য ছিল মঙ্গোল সাম্রাজ্যের বিস্তার। সুতরাং, তারা তাদের পথে আসা প্রতিটি দেশ এবং প্রতিটি শহর আক্রমণ করেছিল।

যখন মঙ্গোলরা আনাতোলিয়ায় পৌঁছে, তখন তারা সেখানে বসবাসকারী তুর্কি উপজাতিদেরকেও তাদের আনুগত্য করতে বাধ্য করে অন্যথায় তাদের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করতো। যেমনটি আমরা দিরিলিস আর্তুগ্রুলে ও দেখেছি, মঙ্গোলরা কায়ী উপজাতিকে অনেকবার আক্রমণ করেছে। কিন্তু আরতুগ্রুল তার আল্পদের সাহায্যে তাদের আক্রমণের জবাব দিতে সফল হন।

তবে আরও অনেক তুর্কি উপজাতিও ছিল। যারা মঙ্গোলদের আক্রমনের শিকার হয়েছিল। সুতরাং, কোঙ্গার/গোকতুগ ও কনুর আল্প এর পরিবারও সেই তুর্কি উপজাতিগুলির মধ্যে একটি ছিল। তাদের গোত্রের নামে সঠিক কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

কোঙ্গার/গোকতুগ এবং কোনুর আল্পের পিতাও একজন সেনা সদস্য ছিলেন যিনি সেই সময়ে মঙ্গোলদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছিলেন। একবার, মঙ্গোলরা তাদের উপজাতি আক্রমণ করে এবং কিছু মঙ্গোলীয় সৈন্য কোঙ্গার/গোকতুগ এবং কনুর আল্প এর তাঁবুর কাছে এসেছিল, তখন তারা তাদের মায়ের সাথে লুকিয়ে ছিল।

তারা জোর করে তাঁবুতে ঢুকে শিশুদের ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। কোঙ্গার/গোকতুগ এবং কনুর আল্প উভয়েই সেই সময়ে শিশু ছিল। তাদের সন্তানদের বাঁচাতে গিয়ে তাদের মা মঙ্গোলীয় সৈন্যদের হাতে নিহত হন। সেই সময়, বড় ভাই কোনুর আল্প সেখান থেকে পালাতে সফল হয় কিন্তু ছোট কোঙ্গার/গোকতুগ ধরা পড়ে।

মঙ্গোলীয় সৈন্যরা তাকে ধরে ক্রীতদাস বাজারে বিক্রি করে। তখন একজন মঙ্গোলিয়ান কমান্ডার, যার নাম বালগাই (যিনি কুরুলুস উসমান সিরিজে বলগাই চরিত্রে অভিনয় করেছেন) তিনি তাকে ক্রয় করেন।

বড় ভাই কোনুর আল্প কায়ী উপজাতির কাছে পৌঁছাতে সফল হন এবং পরে ওসমান গাজীর একজন গুরুত্বপূর্ণ এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধু হয়ে ওঠেন। অন্যদিকে, কোঙ্গার/গোকতুগ ‘কে বলগাই লালন-পালন করেছিলেন, এবং তিনি তাকে তার ধর্ম এবং শৈশবের স্মৃতি সম্পর্কে ব্রেন-ওয়াশ করেছিলেন।

গোকতুগ তার অতীত পুরোপুরি ভুলে গেল। কিন্তু কনুর আল্পের সেই দিনের স্পষ্ট স্মৃতি ছিল। কোঙ্গার/ গোকতুগ ও একজন সাহসী যোদ্ধা হয়ে উঠেছিল এবং বলগাই তাকে ব্যবহার করে অনেক এলাকা দখল করে। এবং এই কারণেই বলগাই মঙ্গোল সাম্রাজ্যের সিংহাসনের জন্য আকাঙ্ক্ষা তৈরি করে।

অঞ্চলগুলিতে আক্রমণ করার সময়, বলগাই কায়ী উপজাতির কাছে পৌঁছে। সেই সময় ছিল যখন কনুর আল্প তার ভাইকে চিনতে পারে। তিনি মানতে প্রস্তুত ছিলেন না যে তিনি তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

তারপর থেকে, কনুর আল্প কোঙ্গার/গোকতুগ ‘কে তার কাছে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা নিতে শুরু করে। এবং সময় এসেছে যখন তিনি কোঙ্গার/গোকতুগ ‘কে ইসলামে ফিরিয়ে আনতে সফল হন। তারপর কোঙ্গার/ গোকতুগ ও নিজেকে একজন ওসমান গাজীর গুরুত্বপূর্ণ গুপ্তচর প্রমাণ করে।

তিনি মঙ্গোলদের পরাজিত করতে ওসমান গাজীকে সাহায্য করেন। তার প্রাথমিক জীবন এবং সমাধিস্থল সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায় না। যুদ্ধের ময়দানে যুদ্ধ করেই কাটিয়েছেন সারা জীবন।

এটা অনুমান করা যায় যে, তাকে তার ভাই কনুর আল্পের কাছে সমাহিত করা হয় যার সমাধি তুরস্কের দুজসে প্রদেশে কনুর আল্প গ্রামে অবস্থিত বলে অনুমান করা হয়। এই ইতিহাস সম্পর্কে মহান আল্লাহ ভাল জানেন।

Leave a Comment