ফেমিকন ট্যাবলেট খাওয়া নিয়ম | ফেমিকন খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

ফেমিকন পিল খাওয়ার নিয়ম

ফেমিকন পিল খাওয়ার নিয়ম: একটি পাতায় মােট ২৮টি পিল থাকে যেখানে ২১ টি সাদা বড়ি এবং ৭ টি লাল বড়ি থাকে। মেয়েদের মাসিক বা পিরিয়ড শুরু হওয়ার ১ম দিন বা ২য় দিন থেকে শুরু করে প্রতিদিন ১ টি করে টানা ২১ দিন সাদা বড়ি খাবেন। ২১ দিন শেষে অর্থাৎ ২২তম দিন থেকে লাল রঙের বড়ি খাওয়া শুরু করবেন। আপনারা যতদিন সন্তান নিতে না চান তাতাে দিন পর্যন্ত নিয়মিত বড়ি খাবেন। সহবাস না করলেও নিয়মিত ফেমিকন পিল খাবেন। যখন বাচ্চা নিতে চান তখন থেকে এই পিল বা বড়ি খাওয়া বন্ধ করে দিন। কোন দিন ট্যাবলেট বা পিল খেতে ভুলে গেলে পরের দিন দুইটি বড়ি একসাথে খেয়ে নিন।

ফেমিকন পরিচিত

প্রিয় ভিজিটর, আপনারা অনেকেই ইতিমধ্যে জানেন ফেমিকন (Femicon Pill) আসলে কি। এটি হচ্ছে মূলত বাংলাদেশের এসএমসি কোম্পানির একটি ব্র্যান্ড। এটি মূলত একটি কম-ডোজের ওড়াল গর্ভনিরোধক পিল যা মহিলাদের শরীরের সাথে নমনীয়ভাবে মানিয়ে যায় এবং দম্পতিদের পরিবার পরিকল্পনা করতে সাহায্য করে। বিভিন্ন ধরণের সল্পমাত্রায় জন্মনিয়ন্ত্রণ পিলগুলোরে মধ্যে ফেমিকন অন্যতম।

ফেমিকন পিলের উপকরন

এক একটি সাদা পিলে রয়েছে নরজেস্ট্রেল ০.৩০ মিগ্রা., ইথালিন ইস্ট্রাডিওল ০.০৩ মিগ্রা., এবং এক একটি বাদামি পিলে রয়েছে ফেরাস ফিউমারেট ৭৫.০ মিগ্রা.।

খাওয়ার উপকারিতা

ফেমিকন পিল খাওয়ার উপকারিতা হছে এটি দম্পতিদের সল্প মেয়াদে জন্মনিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। অর্থাৎ যারা বিয়ের পর অল্পদিনের মধ্যেই বাচ্চা নিতে চায় না এর জন্য এই ট্যাবলেট বা পিল খাওয়া হয়। এছাড়া পিল খেলে পিরিয়ড নিয়মিত হয় এবং মাসিকের সমস্যাগুলাে অনেকাংশে কমে আসে।

 

ঝুঁকি বা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

সাধারণত ফেমিকন খাওয়ার তেমন কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। তবে কিছু কিছু মহিলাদের প্রথম পিল খাওয়া শুরুর পর কিছু স্বাভাবিক অসুবিধা যেমন- বমি ভাব, মাথা ঘােরা, মাথা ব্যাথা, পিল খাওয়াকালীন সময়ে পিরিয়ডের সাথে সামান্য রক্ত ফোঁটা আকারে বের হতে পারে। ২ থেকে ৩ মাস এভাবে চলতে থাকে এমন নিয়ে তেমন ঘাবড়ানাের কারণ নেই। তবে যাদের এই সমস্যা বেশি সময় থাকবে তাদের অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়ার জন্য অনুরােধ রইলাে।।

 

যে সময় পিল খাওয়া উচিত না

আপনি যদি গর্ভবতী হয়ে থাকেন তবে এই পিল খাওয়া বন্ধ রাখুন। আপনার বয়স ৪৫ বছরের বেশি হয়ে থাকলে খাওয়া বন্ধ করে দিন। এছাড়া হৃদরােগ, লিভারের সমস্যা, প্রচণ্ড মাথাব্যাথা, স্তনের ভিতরে শক্ত কিছু অনুভব করলে, ব্লাড প্রেসার বা উচ্চ রক্তসাপ, জন্ডিস থাকলেও ফেমিকন পিল খাওয়া উচিত না। এর বরণের সমস্যা দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

 

ফেমিকন ট্যাবলেটের দাম কত?

এক প্যাকেট ফেমিকন ট্যাবলেটের দাম ৩০ টাকা।

ফেমিকন পিল খাওয়ার কতদিন পর সহবাস করা যায়

উত্তরঃ- বিষয় টি সে রকম নয় পুরো নিয়ম পড়ুন তাহলে বুঝতে পারবেন। মাসিক শুরু দ্বিতীয় দিন থেকে যতদিন পর্যন্ত বাচ্চা নিতে না চান, ততদিন পর্যন্ত ফেমিকন খাওয়া চালিয়ে যেতে হবে। সহবাস করলেও প্রতিদিন 1 টা করে খেতে হবে, সহবাস না করলেও প্রতিদিন 1 টা করে খেতে হবে, প্রতিরাতে। কোন কারনে 1 দিন খেতে ভুলে গেলে পরের দিন দুইটা একসাথে খেতে হবে। যতদিন বাচ্ছা নিতে না চান ততদিন পর্যন্ত একটানা খেতে হবে কোন সমস্যা হবেনা। এই জীতায় ঔষধ নিরাপদ পরবর্তীতে যখন বাচ্ছা নিতে চাইবেন ফেমিকন খাওয়ানো বন্ধ করে দিলে বাচ্ছা নিতে গর্ভাশয় উন্মুক্ত হয়ে যাবে। সঠিক সময়ে মাসিক হয়ে যাবে, মাসিক চলাকালীন খয়েরি বড়ি সিরিয়াল অনুযায়ী খেতে হবে। পুরোপুরি বিস্তারিত জানার জন্য 30 টাকা দিয়ে 1 প্যাকেট ফেমিকন কিনুন, দেখুন ঔ প্যাকেটের ভিতর ছবি সহ বিস্তারিত লিখা আছে।

ফেমিকন খাওয়ার কতদিন পর মাসিক হয়

উত্তরঃ- ফেমিকন খাবার নিয়ম লেখা প্রথম মাসিকের দিন থেকে খেতে হবে এবং খয়রি বড়ি খাবার দিন থেকে মাসিক হবে তা হলে ১৪ দিন পর মাসিকের ডেট পরে মাসিকের ৭দিন ৭ টি বড়ি তার পর বাকি থাকে ১৪ টা ১৪ দিন তার পর খয়রি বড়ি তখন মাসিক হবার কথা তা হলে ১৪দিন পর মাসিক হবে?

টাগঃফেমিকন খাওয়ার নিয়ম (ফেমিকন খাওয়ার নিয়মাবলী), ফেমিকন দাম কত, ফেমিকন খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও উত্তর

ফেমিকন পিল কি?

Femicon মহচ্ছে একধরণের সল্পমাত্রায় জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল। মূলত যারা বিয়ের পর অল্প সময়ের মধ্যে বাচ্চা নিতে চায় না বা ইচ্ছুক নয় তার এই পিল সেবন করে থাকে।

সর্বশেষ

প্রিয় ভিজিটর, আপনারা যখন ফেমিকন ট্যাবলেট কিনবেন তখন এর প্যাকেটের মধ্যে খাওয়ার নিয়ম পেয়ে যাবেন। পিল খাওয়ার পর কোন সমস্যা দেখা দিলে মহিলা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

Leave a Comment